এইচএসসি পাশ করেই মেডিসিনের ডাক্তার!

রাজধানীর রামপুরার বউবাজার এলাকায় ওষুধের দোকানে অভিযান চালিয়ে এক ভুয়া চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাকে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয় হয়। অভিযানে বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ বিক্রির অপরাধে দুই দোকান মালিককে ৫০ ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার (১ এপ্রিল) রাত ১১টার দিকে রামপুরার বউবাজার এলাকায় অভিযানে নামে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় যশোর মেডিসিন কর্নারে গিয়ে দেখা যায় চিকিৎসক ওয়ালী উর রেজা রোগীর সেবা দিচ্ছেন। যার নামের সঙ্গে এমবিবিএস, এফসিপিএস মেডিসিন, সহকারী অধ্যাপক লেখা রয়েছে। বাইরে রোগীর সংখ্যাও কম নয়।

কিন্তু ভ্রাম্যমান আদালতের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে, কথিত ডা.ওয়ালী উর রেজা শুধুমাত্র এইচএসসি পাশ করেই ডাক্তার বনে গেছেন। দীর্ঘ দিন ধরে এই দোকানে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন তিনি।

একজন ড়োগী বলেন, ‘আদদীনে আসছিলাম, ওখানকার ওষুধ দেখানোর জন্য। জানতাম উনি ভাল ডাক্তার।’

ভুয়া চিকিৎসক সেজে চিকিৎসা দেয়ার অপরাধে তাকে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়া বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ রাখায় দুটি ওষুধ বিক্রয় কেন্দ্রের মালিককে ৫০ ও ২৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

র‌্যাব হেড কোয়ার্টার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ‘ডাক্তার না হয়েও তিনি ডাক্তার হয়ে রোগীদের সেবা দিয়েছেন। তিনি সেটা স্বীকারও করেছেন। আইন অনুযায়ী তাকে দু বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এছাড়া বিক্রয় নিষিদ্ধ ওষুধ রাখায় দুটি ওষুধ বিক্রয় কেন্দ্রের মালিককে ৫০ ও ২৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।’

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এমন অভিযান চলমান থাকবে বলে জানান ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *