বিশ্বের সবচেয়ে আবেদনময়ী প্রেসিডেন্ট থাকছেন ফাইনালে!

রাশিয়াকে হারিয়ে ২০ বছর পর বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছেছে ক্রোয়েশিয়া। শনিবার টাইব্রেকারে নিষ্পত্তি হওয়া উত্তেজনাকর ম্যাচটি মাঠে বসে উপভোগ করেছেন ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্ট কলিন্ডা গ্র্যাবার কিতারোভিচ। সঙ্গে ছিলেন রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ। গ্যালারিতে মেদভেদেভকে মোটামুটি শান্ত থাকলেও দ্বিতীয় গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর সাধারণ দর্শকদের মতো উচ্ছাস প্রকাশ করতে দেখা গেছে কলিন্ডাকে।

ক্রোয়েশিয়া শেষ ষোলো টিকেট নিশ্চিত করার পর খেলোয়াড়দের উৎসাহ দিতে মাঠে উপস্থিত থাকার সিদ্ধান্ত নেন ৫০ বছর বয়সি কলিন্ডা গ্র্যাবার। ডেনমার্কের বিপক্ষে ম্যাচ শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগেই ব্যক্তিগত বিমানে চড়ে রাশিয়ায় পৌঁছান তিনি। মাঠে আসেন দেশের জার্সি পরে।

তিনি মাঠে বসে দলের খেলোয়াড়দের শুধু শক্তিই যোগননি, ম্যাচ শেষে ড্রেসিংরুমে খেলোয়াড়দের সঙ্গে নেচে-গেয়ে জয় উদযাপনও করেছেন।

কলিন্ডাকে অনেকেই পৃথিবীর সবচেয়ে আবেদনময়ী প্রেসিডেন্ট বলে থাকেন। ২০১৫ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ক্রোয়েশিয়া প্রজাতন্ত্রের চতুর্থ প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন তিনি। জনপ্রিয় এ নেত্রীই দেশটির প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট।

 


আকর্ষণীয় রূপ আর শারীরিক সৌন্দর্যের জন্য আলোকচিত্রীদের ক্যামেরা সব সময় তার পিছু নেয়। সৈকতে তার বিকিনি পরা ছবি স্যোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তোলে। তবে সৈকতে অবসর যাপনের সময় প্রেসিডেন্টের লাস্যময়ী ছবিগুলো প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগে নাকি পরে তোলা সে বিষয়টি নিশ্চিত নয়।

১৯৯৬ সালে জ্যাকভ কিতারোভিচের সঙ্গে বিয়ে হয় কলিন্ডা গ্র্যাবারের। তাঁদের দুই সন্তান- মেয়ে ক্যাটারিনা (১৭) এবং ছেলে ল্যুকা (১৫)। কলিন্ডা ক্রোয়েশিয়ান ছাড়াও ইংরেজি, স্প্যানিশ ও পর্তুগীজ ভাষায় কথা বলতে পারেন। এছাড়া জার্মান, ফ্রেঞ্চ ও ইতালিয়ান ভাষা বুঝতে পারেন।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *