তিনশত চৌষট্টি দিনের­ ফাষ্টফুড আর মাদক এক­দিনের ইলিশ পান্তা আর­ পাচনে কি জারণ হবে?

বুরহান উদ্দিন মুহাম্মদ শফিউল বশর
লেখক গবেষক,
শাহজাদা হারুয়ালছড়ি দরবার শরীর
জীবনবৃক্ষের আরেকটি পাতা ঝরে গেল।নূতন কচিপাতা গজাল।সৌরবর্ষ পরিক্রমায় বাংলা সনের ১৪২৫ সাল অগ্নিদগ্ধ নুসরাত আর ফাঁসিতে ঝুলানো একাদশবর্ষী হাবীবসহ অসংখ্য লাশের ভারে কুজো হয়ে সজল নয়ন, বিষণ্ন বদন,অবনত আনন মহাকালের গর্বে ধীরপদে যখন বিলীন হতে চলল,একজোড়া নিশিজাগা, জলে ভরা আঁখি তখন কিংকর্তব্যবিমূঢ় তারে পৃষ্ঠপানে চেয়ে আছে।তার পদধ্বনি যখন কর্ণের অগোচরে, অবয়ব যখন দৃষ্টির বাইরে মিলিয়ে যেতে লাগল, তখন নতুনের কেতন উড়িয়ে, মুহুর্মুহু বজ্রধ্বনিতে ধরণী কাঁপিয়ে, হাওয়ায় গাছপালা দুলিয়ে, নদী-ছড়ায় প্রবাহের কল্লোল তুলে,হালদায় মা মাছের ঢেউ তোলা সাঁতরে, টিনের চালে রিনঝিন সুরমূর্ছনায় আগমনী বার্তা বিঘোষিল ১৪২৬ সন। নববর্ষের আগমনে, মনের গহীনে বাজিল আশার নূতন রাগিণী। পুলকিত নয়ন নির্ঘুমে কাটিল মধুর এক রজনী। নিশি শেষে প্রভাত সমীরণের মৃদুদোলায় দোদুল বেলী আর কামিনী। ঘ্রাণে পাগল মনে জাগিল নবনবীনের গান গাওয়ার স্বাদ। গলা ছেড়ে বলতে ইচ্ছা করে, দুর্নীতি, দারিদ্র্য, মানবসৃষ্ট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে পৃষ্ট, কলকারখানা, ইটভাটা, কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের কালো ধোঁয়া আর অগ্নি লেলিহানে তপ্ত কড়াইরূপ বাংলায় আজও বৃষ্টি নামে, ফুল ফোটে,প্রাণদায়ী জলপরশে প্রাণের সাড়া জাগে। কামিনী তলায় দাঁড়িয়ে সবুজ-সাদার মনোহর রূপ নেহারে, বেলি আর কামিনীর গন্ধে যখন বিমুগ্ধ দেখন ও ঘ্রাণ ইন্দ্রীয়, একজন বাঙাল হিসেবে বঙ্গসন্তানদের নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাতে যখন উচাটন মন, ঠিক তখনই শ্রবণ ইন্দ্রিয়যোগে এক অশুভ সংকেত পেয়ে হৃদয় ভারী হল, ঘোর কেটে গেল, পা ঠেকিল বাস্তবতার জগতে।
#আমার_বাড়ির_অদূরে_মহানগর_নামে_এক_হিন্দুপাড়া_রয়েছে। নামে মহানগর হলেও বাস্তবে অজপাড়াগাঁর একটি অবহেলিত পাড়া। একাত্তরে লুন্ঠনের শিকার। লুন্ঠনে কোন পাঞ্জাবী কিংবা রাজাকার অংশ নিয়েছে বলে জনশ্রুত নয়।
স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশেও হয়তো অনেকজন নির্যাতিত হয়ে থাকতে পারে। নইলে নীরবে ভারত গমন আর আরো অনগ্রসর পল্লিতে গিয়ে অনেকের বসবাস কেন? এখনতো পাড়াটি বিরাট-বিরাট খাদে আর হালদায় পরিবেষ্টিত। যে কোন সময় বিলীন হয়ে যেতে পারে। হালদা প্রাকৃতিক হলেও খাদ কিন্তু অতি মুনাফা-লোভীদের বিশাল বপুর সর্বগ্রাসী সর্বভুক মানসিকতার নিদর্শন। ধান ভাঙতে শিবের গীত গাওয়া আর নয়, এবার মূল ঘটনায় আসি।
#বর্ষ_প্রস্থান_আর_আগমনের_রাত, বিদায়-বরণের রাত,পুরানো দুঃখ-গ্লানি ভুলে নবোদ্যমে নূতন করে বাঁচার স্বপ্নে বিভোর রাত; ওই পাড়ায় ঘটে গেল এক লোমহর্ষক ঘটনা! কর্ম-ক্লান্ত দিন শেষে এক তরুণী মা আপন শিশু বুকে ঘুমিয়ে ছিলেন আপন ঘরে। নিজেকে নিয়ে,কোলের শিশুকে নিয়ে,পরিবারকে ঘিরে হয়তো তার চোখেও অনেক স্বপ্ন ছিল। ভাবনার ত্রিসীমায়ও আসার কথা নয় যে, তার আর সকাল দেখা হবেনা! তার শিশু নববর্ষের রাঙা অরুণ দেখবে মা হারার বেদনা বুকে উদাস চোখে!! কিন্তু সত্যি হল তা-ই।নিজের ঘরেই দুর্বৃত্তদের চুরিকাঘাতে নিহত হলেন তিনি। বাঁচাতে এসে শ্বশুরও চুরিকাঘাত হয়ে হাসপাতালের বিছানায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন: হারজিত আল্লাহ মালুম।জানিনা, ওই তরুণী কি শুধু চুরির অঘাতে নিহত হলেন,নাকি মৃত্যুপূর্বে অন্য অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়েও তাকে যেতে হয়েছে?
#বিশেষভাবে_ভাবনার_বিষয়_হল, অভিযোগে আটকরা উঠতি বয়সের কিশোর: তদুপরি একই পাড়ার! কোথায় আজ পাড়াপড়শির পারস্পরিক সৌহার্দ্য ? এ ছোট্ট বয়সে এ ছোট্ট কিশোররা কেন এত বেপরোয়া? তাদের কোমল মনে হিংসার অনল কে জ্বালিয়েছে? এত সাহস কে জুগিয়েছে? মাদকের মরণ-ছোবল নগরের সীমা পেরিয়ে অনগ্রসর পল্লিতেও হানা দিলনা-তো!! বড়ভাই প্রভাব-বলয়তো পুরো বাংলায় বিস্তৃত, এখন গ্যাংস্টার সংস্কৃতিও গাঁ-গ্রামে বিস্তার লাভ করলনাতো! আশা করি দায়িত্বশীলরা ভেবে দেখবেন।
#৩৬৪_দিনের_ফাষ্টফুড, রকমারি মাদক আর আকশ সংস্কৃতির বিনোদনমূলক রঙিন জগত একদিনের পান্তা-ইলিশ-পাচনে জারিত হওয়ার স্বপন, স্বল্প পরিসরে দেশীয় সংস্কৃতি চর্চার কর্মসূচিতে ভিনদেশী সংস্কৃতির জঘন্য প্রভাবমুক্ত যুবসমাজ গড়ে ওঠার অতি আশাবাদ বোকার স্বর্গে বাসের সম-অর্থক। বরং আমি মনে করি ওইসব অখাদ্য একদিনে জারিততো হবেইনা; তদুপরি বমনোদ্রেক ঘটাবে।
Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *