আবার ফিরছেন নাসির

Spread the love

অপেক্ষার পালা শেষ হতে যাচ্ছে নাসির হোসেনের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি দিয়ে আবারও জাতীয় দলে ফিরতে যাচ্ছেন এই টাইগার তারকা। এমন ইঙ্গিত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর।

প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘নাসির ও মুমিনুলকে আবারো সীমিত ওভারের ম্যাচে ফেরাতে চাই। ওদেরকে জাতীয় দলে নিতেই ইমার্জিং কাপের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।’ নাসিরেরও মূল লক্ষ্য দ্রুত জাতীয় দলে ফেরা। ‘দলে ফিরতে আমি আমার চেষ্টা করছি।’

চলমান ইমার্জিং টিমস এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলের সহ-অধিনায়ক নাসির। প্রথম ম্যাচে তিনি ব্যাটিং করার সুযোগ পাননি। তবে বল হাতে ১৮ রানে শিকার করেন ৩টি উইকেট।

পরের ম্যাচে দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তোলেন নাসির। বিপর্যয়ের মধ্যে দাঁড়িয়ে দারুণ এক শতক হাঁকান তিনি। নির্বাচিত হয় ম্যাচ সেরা। মূলত তাঁর শতকে ভর করেই জয় পায় বাংলাদেশ।

এর আগে জাতীয় লিগে তিন ম্যাচের চার ইনিংসে ব্যাট হাতে দলে ফেরার আভাস দেন নাসির। যদিও বোলিংয়ে করার খুব একটা সুযোগ পাননি তিনি। ১০৯.৩৩ গড়ে ৩২৮ রান করেছেন নাসির। হাঁকিয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম দ্বিশতক।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের চতুর্থ আসরে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে ১০টি ইনিংসে ১৯৫ রানের পাশাপাশি শিকার করেছেন ৪টি উইকেট। আর ফিল্ডিংয়ে দেখিয়েছেন দারুণসব কারিশমা। তালুবন্দি করেছেন ৮টি ক্যাচও। ঢাকার হয়ে সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে নাসিরের নাম।

দেশের জার্সিতেও নাসিরের ক্যারিয়ার খুব একটা খারাপ না। একদিনের ক্রিকেটে ৫৮ ম্যাচ থেকে ১২৬২ রান করেছেন নাসির। যেখানে তাঁর গড় ৩২ এর উপরে। রয়েছে ১টি শতক আর ৬টি অর্ধশতকের ইনিংস।

কেবল ব্যাটিংয়েই নয়, বল হাতেও অনেকখানি সফল নাসির। ৫৮ ম্যাচ খেলে ঝুলিতে পুরেছেন ২১টি উইকেট। যেখানে তাঁর বোলিং ইকোনমিক রেট ৪.৬১। টেস্টে ১৭ ম্যাচে ৯৭১ রানের পাশাপাশি ৮ উইকেট। টি-টোয়েন্টিতে ৩১ ম্যাচ থেকে করেছেন ৩৭০ রান। রয়েছে ৭টি উইকেট।

সবশেষ গত বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে সুযোগ পায় নাসির হোসেন। এরপর আর জাতীয় দলে আর জায়গা হয়নি নাসিরের। তার আগে ২০১৫ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ২২ গজে একবার পা পড়েছিল এই টাইগার অলরাউন্ডারের।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *