পরশুরামে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে অসামাজিক কাজে লিপ্তঃ হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার কে আটক

Spread the love

ফেনীর পরশুরামের নিজ কালিকাপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) মোঃ মহি উদ্দিনকে এক প্রবাসীর স্ত্রী সাথে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে স্থানীয় গ্রামবাসী চারঘন্টা তালা দিয়ে ক্লিনিকে আটকে রাখে। পরে সালিশ বৈঠকের মাধ্যেমে তিনশ টাকার স্ট্রাম্পে মুচলেকা দিয়ে তাঁর ভাই ডিএম সাহেব নগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন মহি উদ্দিনকে ছড়িয়ে নেন। এসময় হাসপাতালের কর্মকর্তারা, সিএইচসিপি নুরুল করিম,আনিমুল ইসলাম মিন্টু উপস্থিত ছিলেন। এঘটনার সময় আশপাশের এলাকার প্রায় প্রাচশতাধিক লোক জড়ো হয়।


ঘটনাটি ১৭ জুলাই শনিবার বিকেলে উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের নিজকালিকাপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে ঘটেছে। অভিযুক্ত মহি উদ্দিন একই ইউনিয়নের ডিএম সাহেব নগরের বাচ্ছু মিয়ার ছেলে।


স্থানীয় গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন দীর্ঘদিন ধরে ওই কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) মোঃ মহি উদ্দিন স্থানীয় এক প্রবাসীর স্ত্রী সাথে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার গুঞ্জন চলছিল। ঘটনার দিন শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে ওই নারী ক্লিনিকে প্রবেশ করার পর সিএইচসিপি মোঃ মহিউদ্দিন দরজা বন্ধ করে দেন। এসময় অন্য রোগীদেরকে পরের দিন আসতে বলে।
বিষয়টি চারদিকে জানাজানি হলে স্থানীয় লোকজন একত্রিত হয়ে দুইটার দিকে কমিউনিটি ক্লিনিকের বাইরে তালা লাগিয়ে দিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পরশুরাম থানার পুলিশকে খবর দেন।


বিকেল ৪টা পর্যন্ত তালাবদ্ধ থাকার পরও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত না হওয়ায় মির্জানগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি স্থানীয় ইউপি সদস্য ও কমিউনিটি ক্লিনিকের সভাপতি মহি উদ্দিন ছুট্টোর নেতৃত্বে সালিশী বৈঠকে মিমাংশা করে দেন। এসময় স্থানীয় ইউপি মেম্বারের কাছে তিনশ টাকার স্ট্রাম্পে মোচলেকা দিয়ে ছাড়া পায় মহিউদ্দিন ।

পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার ইয়াছিন আলাউদ্দিন ডালিম জানান অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে স্থানীয় লোকজন তাকে আটকে রাখে তাৎক্ষনিক ভাবে ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্বার করা হলেও তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সিভিল সার্জনসহ সংলিষ্ট দপ্তরে লিখিত চিটি দেয়া হয়েছে।


নিজ কালিকাপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) অভিযুক্ত মোঃ মহি উদ্দিনের কাছে এ বিষয় জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান ঘটনার সময় তিনি প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে কথা বলছিলেন এসময় স্থানীয় লোকজন তাকে বাইরে তালা দিয়ে আটকে রাখে।


পরশুরাম মডেল থানার ওসি মু খালেদ হোসেন জানান বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *