পুলিশের হাতে একাধিক সিসিটিভি ফুটেজ

Spread the love

জানা গেছে, সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্টে মামুনুল হক ও জান্নাত আরা ঝর্ণার অবস্থান এবং পরবর্তীতে ঘটে যাওয়া সবগুলো ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। এ জন্য রিসোর্টে মাওলানা মামুনুলের অবস্থানের ভিডিও এবং হেফাজত কর্মীরা তাকে ছিনিয়ে নেওয়ার একাধিক সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছেন তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে সম্ভাব্য সবগুলো দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া নানা কথোপকথনও প্রকৃতপক্ষে মাওলানা মামুনুল হকের কি না তাও যাচাই করা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলছেন, পুলিশের ওপর হামলা, আইন প্রয়োগে বাধাদান, রাস্তায় আগুন, স্থাপনা ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে। তান্ডবের সঙ্গে যে বা যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে, মাওলানা মামুনুল হকের সঙ্গে রয়েল রিসোর্টে থাকা নারীর সাবেক স্বামী হাফেজ শহীদুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। খুলনার সোনাডাঙ্গা গোবরচাকা এলাকা থেকে ডিবি পরিচয়ে তাকে আটক করা হয়। গতকাল সোনাডাঙ্গা তালিমুল মিল্লাত মাদরাসার (খালাসির মাদরাসা) সভাপতি মো. ইমদাদুল হক খালাসি এ তথ্য জানান। হাফেজ শহীদুল ইসলাম ওই মাদরাসার হেফজখানার শিক্ষক ছিলেন।

সূত্র আরও বলছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া কয়েকটি কথোপকথন বিশ্লেষণ করে বুঝা গেছে, মাওলানা মামুনুলের বোন এবং প্রথম স্ত্রী তার দ্বিতীয় বিয়ে সম্পর্কে অবহিত ছিলেন না। তবে কথোপকথনগুলো প্রকৃতপক্ষেই মাওলানা মামুনুলের কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  এরপর মামুনুল হক ফেসবুক লাইভে এসে বলেন, তিনি বিয়ে করেছেন তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুর স্ত্রীকে। পারিবারিকভাবেই এই বিয়ে হয়েছে।

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *